• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

শুধু তুলসী নয়, এর পাতারও কত অবাক করা গুণ আছে 

bijoy71news
প্রকাশিত অক্টোবর ৫, ২০২৩
শুধু তুলসী নয়, এর পাতারও কত অবাক করা গুণ আছে 

ভেষজ ওষুধ হিসেবে তুলসী পাতার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। তাই তো আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে এই পাতার অবাধ ব্যবহার। তবে শুধু তুলসী পাতার গুণ মাহাত্ম নিয়ে আলোচনা করলেই চলবে না। বরং এর বীজের গুণাগুণও কিন্তু চমকে দেওয়ার মতো।

জানলে অবাক হয়ে যাবেন, প্রতিরাতে এক ছোট চা চামচ তুলসী পাতার বীজ পানিতে ভিজিয়ে রেখে পরের দিন সকাল সকাল খালি পেটে পান করলেই কিন্তু একাধিক উপকার মিলবে। এমনকি এড়িয়ে চলা যাবে নানাবিধ রোগের ফাঁদ।

সুতরাং আর অহেতুক সময় নষ্ট না করে তুলসীর বীজ ভেজানো পানি পানের একাধিক অকল্পনীয় গুণাগুণ সম্পর্কে জেনে নিন। আশা করছি, প্রতিবেদনটি পড়ার পর আপনার জ্ঞানচক্ষু উন্মোচিত হবে। আপনিও এই পানীয়কে ডায়েটে জায়গা করে দেবেন।

​খনিজের খনি​

জানলে অবাক হয়ে যাবেন, প্রতিদিন সকালে তুলসীর বীজ মেশানো পানি পান করলে দেহে ম্যাগনেশিয়াম এবং ক্যালশিয়ামের ঘাটতি অনেকটাই পূরণ করা সম্ভব হবে। শুধু তাই নয়, এই পানীয় হলো আয়রনের মতো অত্যন্ত জরুরি খনিজের ভাণ্ডার।

সুতরাং দেহে খনিজের ঘাটতি মেটাতে চাইলে কাল সকাল থেকেই এই পানীয় খাওয়া চালু করে দিন। আশা করছি, এতেই আপনার স্বাস্থ্যের হাল ফিরবে।

কমবে ওজন​

ওজনের কাঁটা স্বাভাবিকের গণ্ডি পেরিয়ে গেলেই ডায়াবেটিস, প্রেশার, কোলেস্টেরলসহ একাধিক জটিল অসুখে ভোগার আশঙ্কা বাড়বে বৈকি! সুতরাং সুস্থ-সবল জীবনযাপন করার ইচ্ছা থাকলে যেনতেন প্রকারেণ ওজন কমাতে হবে।

এই কাজে আপনার হাতের পাঁচ হতে পারে তুলসী বীজের পানি। এই পানীয়তে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার, যা কিনা দীর্ঘক্ষণ পেট ভরে রাখতে সাহায্য করে। যার ফলে আজেবাজে খাওয়ার প্রবণতা কমে। কম খেলে যে ওজন কমবে, তা তো বলাই বাহুল্য! সুতরাং আপনার ওয়েট লস ডায়েটে এই ড্রিংককে যত দ্রুত সম্ভব জায়গা করে দিন।

সুগার থাকবে নিয়ন্ত্রণে​

হাই ব্লাড সুগার একটি ঘাতক অসুখ। এই রোগকে বশে না রাখতে পারলে কিডনি, চোখ, হার্ট, স্নায়ুসহ দেহের একাধিক অঙ্গের বারোটা বাজতে পারে। তাই সুস্থ থাকতে ব্লাড সুগারকে স্বাভাবিকের গণ্ডিতে আটকে রাখতে হবে।

এই কাজে আপনার সহযোদ্ধা হতে পারে তুলসীর বীজ ভেজানো পানি। কারণ এই পানীয়ে এমন অ্যান্টিডায়াবেটিক উপাদান রয়েছে, যা রক্তে শর্করার মাত্রা কমানোর কাজে সিদ্ধহস্ত। সুতরাং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ এবং প্রতিরোধ- এই দুই ক্ষেত্রেই আপনার সঙ্গী হতে পারে এই ড্রিংক।

​মাত্রা ছাড়াবে না কোলেস্টেরল​

হাই কোলেস্টেরলেকে যেনতেন প্রকারেণ বশে রাখতে হবে না। নচেৎ হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক এবং পেরিফেরাল আর্টারি ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বাড়বে বৈকি! তাই কোলেস্টেরলকে বশে আনতে চাইলে যত দ্রুত সম্ভব তুলসীর বীজ মেশানো পানির সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতিয়ে নিন।

কারণ এই পানীয়ে মজুত থাকা ফাইবার ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রক্তে লিপিডের মাত্রাকে কন্ট্রোলে আনার কাজে সিদ্ধহস্ত। সুতরাং এই রোগের ফাঁদ এড়াতে নিয়মিত তুলসীর বীজ মেশানো পানি পান করতে ভুলবেন না যেন!

পেটের স্বাস্থ্য ফিরবে​

পেটের স্বাস্থ্য ফেরানোর ইচ্ছা থাকলে আপনাকে প্রতিদিন সকাল সকাল তুলসীর বীজ মেশানো পানি পান করতেই হবে। এই কাজটা করতে পারলেই শরীরে ফাইবারের ঘাটতি দূর হবে। ফলে গ্যাস, অ্যাসিডিটির মতো জটিল অসুখের ফাঁদ কাটিয়ে সুস্থ জীবন কাটাতে পারবেন। তাই শুভ কাজে আর দেরি নয়।