• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

‘সংকটে মুনাফা নয়, জয়ী হোক মানবিকতা’

bijoy71news
প্রকাশিত এপ্রিল ৫, ২০২০

নুরুল হক শিপু ::
করোনা ভাইরাস। অজানা এই মরন ঘাতক থামিয়ে দিয়েছে পুরো বিশে^র গতিপথ। বাংলাদেশও এখন স্তব্ধ। বিত্তবান থেকে হতদরিদ্র কর্মময় মানুষ আজ ঘরবন্দি। রাজনীতিবিদ, বিত্তবান ব্যক্তি, বিভিন্ন সংগঠন সবাই এখন দাঁড়িয়েছেন আসহায় মানুষের পাশে। কেউ কেউ মানুষের অসহায়ত্বকে পুঁজি করে নিজেকে জনপ্রিয় করার চেষ্টায়ও মরিয়া হয়ে ওঠেছেন। এসব জনপ্রিয়তা অর্জনে চলছে নানা কৌশল। বিত্তবানদের কাছ থেকে সহায়তা নিয়ে দিব্যি নিজের নামও ফুটিয়ে যাচ্ছেন কোনো কোনো নেতা আর জনপ্রতিনিধি। তারা কেউ নিজের কাঁধে করে খাবারের বস্তা নিয়ে যাচ্ছেন মানুষের ঘরে, আবার কেউ আগামীর আখের গোছাতে এ সময়কে মুখ্য পথ হিসেবে বেঁচে নিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসব নিয়ে কতো শত আলোচনাই না চলছে-তা বলে শেষ করার নয়। একটি সাবান অসহায় মানুষকে দিয়ে ৪০ জনের ফটোসেশন এখন সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।
এমন পরিস্থিতিতে কিছু ব্যতিক্রম মানুষ এবং রাজনৈতিক নেতাও রয়েছেন সমাজে। যাদের ডাকে সমাজের বিত্তাবনরা দাঁড়িয়েছেন মানুষের পাশে। যারা মানুষের ঘরে ঘরে ছুটছেন নিরবে, কোনো ফটোসেশন নয়; কারো সহায়তায় নয়; একেরবারেই নিজের সাধ্যের অর্থটুকু তুলে দিচ্ছেন অসহায় মাষুটির হাতে। যে দানের কথা জানেন শুধু দান গ্রহীতা আর দাতা। তেমননি একজন প্রচার বিমুখ রাজনৈতিক নেতা, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসাইন।
প্রতিবেদনটি তৈরির আগে অধ্যাপক জাকির হোসাইনের ফেইসবুকের পাতা ঘুরে দেখা যায় তিনি মানবতার ডাকে সাড়া দিতে বিত্তবানদের আহ্বান জানিয়েছেন। তবে সেই আহ্বানেও ছিল ভিন্নতা।
জাকিরের ঘনিষ্ট কয়েকজর জানান, তাঁর আহ্বানে সাড়া দেয়া মানুষের অর্থ এবং অনুদান জাকির হাতে নেননি-কারণ খোঁজতে গিয়েই বেরিয়ে আসে অসাধারণ মানসিকতা আর মানবতার গল্পের পেছনের গল্প।
গত ১৭ মার্চ ছিল সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমনের জন্মশতবার্ষিকী। জমকালো আয়োজনে এ দিনটি পালনের কথা ছিল। কিন্ত করোনা ভাইরাসের করাল গ্রাসে বিশ^ যখন স্থবির হয়ে গেলো; ঠিক তখনই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল আনুষ্ঠানিকতা বন্ধ ঘোষণা করলেন। এরপর বিপদ এড়াতে লকডাউনের পথে চলে গেল দেশ। গণপরিবহন, সরকারি, অফিস, আদালত সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হলো। মানুষ কর্মহীন হয়ে ঘরেবন্দি হয়ে গেল।
১৭ মার্চের পরই অধ্যাপক জাকির তাঁর ফেইসবুকে পোস্ট করেছেন ‘রাসুলসাল্লাহ (স.) বলেছেন, যে ব্যক্তি গোপনে এমনভাবে সাদকা করে যে, তার ডান হাত যা দান করে বাম হাত তা জানতে পারে না। (সহি বুখারি)। এরপর অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান অব্যাহত রাখেন তিনি।
লিখেছেন ‘গুনগত পরিবর্তন আনি মন মানসিকতার, রাজনীতি হোক মানবতার, দূর হোক সকল পঙ্কিলতা।
‘আমরা সবাই থাকি নিজ নিজ ঘরে, সংক্রমণ রোগ থেকে নিজেকে রক্ষা করে। মানবতার তরে মানবিক হই, আত্মপ্রচার বিমুখ হয়ে।’
‘সবার প্রচেষ্টা হোক ঘরে থেকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, সাধ্যমত অসহায় মানুষদের প্রতি সাহায্যের হাত প্রসারিত করা। জয় হোক মানবতার।
‘নৈতিকতা ও মমত্ববোধ দিয়ে সারা বিশ্বের মানুষ এই শত্রুর মোকাবিলা করতে পারবে। সংকটে মুনাফা নয়, জয়ী হোক মানবিকতা।’
আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীসহ বিত্তবানরা মহানগরে অসহায়দের প্রতি সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়াই প্রমাণ করে, মানুষ-মানুষের জন্য। জয় বাংলা।’
নিজের মনেরভাব এভাবে প্রকাশ করার পর অধ্যাপক জাকিরের ডাকে সাড়া দেন অনেক বিত্তবান। জাকির তাদেরকে বলেন, আপনি আপনার পাশের বাড়ির অসহায় মানুষটিকে সহায়তা দিন। কোনো প্রচারণা ছাড়াই। আমাকে যেতে হবে না; আপনার দানই হবে আমাদের সম্মিলিত সহযোগিতা। তিনি বলেন, লক্ষ্য করবেন আপনার দানে যেনো কোনো পরিবার সামাজিকভাবে ছোট না হয়।’
জাকিরের আহ্বানে এভাবেই তাঁর প্রিয়জনেরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে দিয়ে যাচ্ছেন সহায়তা।
এ ব্যাপারে কথা হয় অধ্যাপক জাকিরের সাথে। তিনি বলেন, ‘মানবতা আর মানবিকতা দেখানো প্রচারের বিষয় না। এই সময় নিজের ফোকাস করার সময় নয়; এখন সময় মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতাকে জয় করা। তিনি বলেন, আমি আমার আশেপাশের অসহায় মানুষকে সহায়তা করেছি। যারা আমার পাশে দাঁড়াতে চেয়েছেন-আমি তাদেরকে জানিয়ে দিয়েছি, আপনারা নিজের আশেপাশের মানুষকে সহায়তা দিন। প্রচারণা নয়; দান হোক মানবতার। মানুষ হিসেবে এভাবেই প্রকাশ পাক আমাদের মনুষ্যত্বের বিকাশ।’