• ১৬ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ , ৭ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

কুলাউড়ার মনিকে যে পরামর্শ দিলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী

bijoy71news
প্রকাশিত অক্টোবর ১৩, ২০১৫

40589জাতিসংঘের ৭০তম অধিবেশনে যোগ দিয়েছিলেন সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ার স্কুলছাত্রী মনি বেগম। জাতিসংঘের ওই অধিবেশনে বক্তৃতাও করেন কুলাউড়ার দরিদ্র পরিবারের অদম্য মেধাবী এই মেয়েটি।

ওই সময় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের সাথেও তার একান্তে কথা হয়। বাংলাদেশে সচেতনামূলক কাজের জন্য ক্যামেরন তাকে অনেক পরামর্শ দেন। তার মধ্যে অন্যতম ছিল বাল্য বিবাহ ও শিশু নির্যাতন বন্ধে সামাজিক সচেতনা বৃদ্ধি।

মনি বেগম জানান- ‘জাতিসংঘের পরিষদে আমি ৫ বছরের নিচের শিশুমৃত্যু কমানোর বিষয়ে কথা বলেছি। এছাড়া শিশু নির্যাতন প্রতিরোধের বিষয়টিও তুলে ধরেছি। তবে শিশু নির্যাতন বন্ধে বিশ্ব নেতাদেরকে দৃঢ প্রত্যয় দেখাতে হবে।’

মনি বলে, ‘ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুনকে আমি প্রশ্ন করেছিলাম- কিভাবে শিশু নির্যাতন বন্ধ করা যায়? ডেভিড ক্যামেরুন আমাকে বলেছেন- শিশু নির্যাতন বন্ধে পরিবার, সমাজসহ সবাইকে ঐক্যেবদ্ধভাবে একযোগে কাজ করতে হবে। তাহলেই শিশু নির্যাতনের হার কমতে পারে।’

এই মেধাবী শিক্ষার্থী বলে, ‘জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগদান করে আমার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। সেখানে গিয়ে অনেক কিছু শিখেছি। যা আমাকে আগামীদিনে সামনে এগিয়ে যেতে সহযোগিতা করবে।’

‘জাতিসংঘে গিয়ে আপনার অর্জন কী, এই অর্জনকে আপনি কীভাবে কাজে লাগাবেন?’ এ প্রশ্নের জবাবে মনি বলে, ‘জাতিসংঘের অধিবেশনে প্রথমত আমি শিখেছি কিভাবে বাল্য বিবাহ ও শিশু নির্যাতন বন্ধ করা যায়। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এ বিষয়ে আমাকে মূল্যবান অনেক পরামর্শ দিয়েছেন। তার পরামর্শ অনুযায়ী এই দুটি বিষয়েই আমি দেশে কাজ শুরু করতে চাই।’

শিশু বিবাহের ক্ষতির দিক প্রসঙ্গে মনি বলে, ‘শিশু বিবাহের ফলে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখিন হয় মা, শিশু, পরিবার এমনকি দেশ। আর শিশু বিবাহের ফলে কিশোরী বয়সে গর্ভধারণ, মৃত্যু ও শিশু মৃত্যু, মা ও শিশুর অপুষ্টি এবং বিদ্যালয় থেকে ঝড়ে পড়ে যায় নারী।’